শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ-এসবিএমসি

ইংরেজিতেঃ  Sher-E-Bangla Medical College Hospital (SBMC) .

শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ-এসবিএমসি-বাংলাদেশের দক্ষিণের বিভাগীয় শহর বরিশালে অবস্থিত একটি পূর্ণাঙ্গ চিকিৎসা সেবা প্রতিষ্ঠান হচ্ছে এই শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ । দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল হিসেবে খ্যাত এই বিভাগটি । যেখানকার উচ্চ চিকিৎসা লাভের বলা যায় একমাত্র অবলম্বন হচ্ছে এই মেডিকেল কলেজটি ।

তৎকালীন পাকিস্তান সরকারের সাশনামলে ১৯৬৮ সালে সরকারী ব্যবস্থাপনায় প্রতিষ্ঠিত হয় এই মেডিকেল কলেজটি । যা বর্তমানে দেশের একটি অন্যতম প্রধান চিকিৎসাবিজ্ঞান বিষয়ক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান । এখানে স্নাতক পর্যায়ে এম বি বি এস ও বি ডি এস (ডেন্টাল) এ যথাক্রমে ২২০ ও ৫২ জন করে শিক্ষার্থী প্রতি বছর ভর্তি লাভের সুযোগ পায় । এছাড়াও এখানে ১ বছর মেয়াদে হাতে কলমে (ইন্টার্নশিপ) শিক্ষা কার্য্যক্রমও চালু রয়েছে । সব মিলিয়ে এটি একটি পূর্ণাঙ্গ চিকিৎসা বিজ্ঞান বিষয়ক একটি প্রতিষ্ঠান । এর বর্তমান অধ্যক্ষ ড মাকসুমুল হক ।

 

ধরণঃ সরকারি মেডিকেল কলেজ

অবস্থানঃ বরিশাল শহরের দক্ষিণ-পশ্চিম কোনে অবস্থিত এই শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ ।

সাহায্যের জন্য গুগল ম্যাপ লিঙ্কঃ ম্যাপ

 

শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ-এসবিএমসি এর সংক্ষিপ্ত ইতিহাসঃ

এই মেডিকেল কলেজটির নির্মাণ কাজ শুরু হয় ১৯৬৪ সালের  ৬ নভেম্বর এবং ১৯৬৮ সালে এতে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয় । তবে এটি পূর্ণাঙ্গ মেডিকেল কলেজের স্বীকৃতি পায় তার পরের বছর । স্থাপনকালের নাম রাখা হয় বরিশাল মেডিকেল কলেজ । পরবর্তীতে বরিশালের মহান নেতা আবুল কাশেম ফজলুল হক বা এ কে ফজলুল হক এর নামানুসারে নামকরণ করা হয় শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ ।

 

শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ  এর ক্যাম্পাসের সংক্ষিপ্ত বিবরণঃ

বরিশাল মেডিকেল কলেজে এই বিশাল সংখ্যক ছাত্রছাত্রীদের পাঠদান থেকে শুরু করে হাসপাতাল বিভাগে নিরবিচ্ছিন্ন চিকিৎসা

দানের লক্ষ্যে এখানে রয়েছে আলাদা আলাদা একাডেমিক,হাসপাতাল এবং আবাসিক ভবন । আর এই পুরো প্রতিষ্ঠানটির মোট

আয়তন ৮১.৫৪৫ একর ।

এখানে ছাত্রদের জন্য আলাদা তিনটি হোস্টেল এবং ছাত্রীদের জন্য তিনটি হোস্টেল রয়েছে । এছাড়াও ইন্টার্ন ডাক্তারদের জন্যও

আলাদা আলাদা একটি করে হোস্টেল এর ব্যবস্থা রয়েছে ।

 

 অবকাঠামো এবং হাসপাতাল বিভাগঃ

জরুরী বিভাগ, বহিঃবিভাগ, সার্জারি বিভাগ, ইন্টেন্সিভ কেয়ার বিভাগ সহ সর্বমোট ১২০০ শয্যা বিশিষ্ট একটি হাসপাতাল বিভাগ

রয়েছে এই হাসপাতালে । এছারাও এতে ১টি নার্সিং কলেজ, ১টি নার্সিং ছাত্রীনিবাস, ১টি নার্সিং ছাত্রাবাস , ১টি মসজিদ, ১টি

জিমনেসিয়াম, খেলার মাঠ ইত্যাদি রয়েছে । যা বরিশাল বাসির উন্নত চিকিৎসা লাভের একমাত্র অবলম্বন ।

 

শের-ই-বাংলা এর অনুষদ ও বিভাগঃ

এটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা অনুষদের আওতাধীন একটি মেডিকেল কলেজ । এখানে প্রয়োজনীয় প্রায় সকল বিষয়েই

শিক্ষা প্রদান করা হয়ে থাকে । (অসমাপ্ত)

 

সবশেষে কিছু কথাঃ

শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠার পর থেকেই বরিশাল বিভাগের মানুষের চিকিৎসা সেবায় অনবদ্য ভূমিকা রেখে যাচ্ছে ।

সব জায়গার মত এখানেও কিছু কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে । এটা থাকবেই এবং এটা মেনে নিয়েই চলতে হবে কারণ আমরা কেবল

অনুন্নত মধ্যম আয়ের দেশে পা রেখেছি । আশা করি ভবিষ্যতে এটি তার সকল বাধা অতিক্রম করে বিশ্বমানের একটি মেডিকেল

কলেজে রূপ  নিবে । ধন্যবাদ ।

 

আরো বিস্তারিত তথ্য জানার জন্য সকলের উদ্দেশ্যে নিচে কলেজের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট উইকিপেডিয়া  লিংক দিয়ে দিলাম ।

ওয়েবসাইট লিংক ।

উইকিপেডিয়া লিংক ।