শিকড়ে ক্যানসার মুক্তি-Root can release cancer!-সারা বিশ্বজুড়ে যতগুলি মরণব্যাধি রয়েছে তার মধ্যে ক্যান্সার অন্যতম ।

ক্যান্সার সাধারণত শরীরের কোনো অঙ্গে প্রথম এর জীবন শুরু করে এবং পরবর্তীতে সারা শরীরে বিস্তার শুরু করে । একটা

পর্যায়ে যা মানুষকে নিয়ে যায় মৃত্যুর দুয়ারে । চিকিৎসা বিজ্ঞাণের কল্যানে এখন পর্যন্ত অনেকগুলি চিকিৎসাই উদ্ভাবিত হয়েছে ।

তবে,সব এর চেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে এগুলি ব্যবহার করা সব সময় যেমন সম্ভব হয় না ঠিক তেমনি ব্যয়বহুলও। অন্যদিকে প্রকৃতি

অনেক আগে থেকেই আমাদের দিয়ে রেখেছে সকল বড় বড় রোগের সহজলভ্য এবং নির্ভরযোগ্য সব চিকিৎসা তথা বিভিন্ন

ঔষুধী গাছ।আমরা এসবের ব্যবহার জানি না বলেই,এতদিন ব্যবহার করতে পারিনি । তবে ধিরে ধিরে এখন বিভিন্ন বিজ্ঞানীদের

অনবরত গবেষনার ফলে সেগুলো আমাদের উঠে আসছে। আজ তেমনি একটি ওষুধি গাছের গুণের কথা এখানে বর্ননা করা

হয়েছে । যা মরণব্যাধি ক্যান্সার প্রতিরোধেও সক্ষম!

 

শিকড়ে ক্যানসার মুক্তি-Root can release cancer!

প্রাচীনকাল থেকেই নানা অসুখ-বিসুখে মানুষওষধি গাছ ব্যবহার করে আসছেন । প্রাকৃতিক উপায়ে তৈরি এসব ওষুধে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া না থাকায় গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর কাছে এগুলো আজও বেশ জনপ্রিয় । ড্যানডেলিয়ন এক ধরনের ওষধি গাছ।এর হলুদ ফুল কেবল সৌন্দর্য বর্ধনেই নয়,ওষুধ হিসেবেও অনেক আগে থেকে ব্যবহার হয়ে আসছে। ড্যানডেলিয়ন ফুল যখন ফোটে তখন তা শিকড়সহ পানিতে সিদ্ধ করে চা হিসেবে পান করলে ডায়াবেটিস, লিভারের অসুখ, গলব্লাডার, হজম ও কিডনির সমস্যা দূর হয় । নারীদের জটিল সব রোগ প্রতিরোধেও বেশ কার্যকরী । কিন্তু নতুন একটি বৈজ্ঞানিক গবেষণায় বলা হচ্ছে, ড্যানডেলিয়ন গাছের শিকড় ক্যানসার চিকিৎসাতেও বেশ কাজে দিতে পারে ।

এ জন্য খুব বেশি পরিশ্রম করতে হবে না । ফুল এলে গাছটির শিকড় তুলে ছোট-ছোট করে একই মাপে কেটে ফেলুন এবং বাতাসে সেগুলো শুকাতে দিন ।  শুকানোর জন্য ঠাণ্ডা ও শুষ্ক স্থানে ছড়িয়ে দিন এগুলো। ১৩ থেকে ১৪ দিন সেখানে রেখে দিন । চাপ দিলে যখন আঙুল বসে যাবে না, তখন মনে করবেন এটা ব্যবহারের উপযোগী হয়েছে । এরপর কোনো পাত্রে নির্দিষ্ট তাপে সংরক্ষণ করে ভবিষ্যতে ব্যবহারের জন্য রেখে দিন ।

ড্যানডেলিয়নের শিকড়ের চাঃ

গাছ তোলার পর কাঁচা ৬০ গ্রাম ও ৩০ গ্রাম শুকানো ড্যানডেলিয়নের শিকড় একটি কড়াইতে নিন । এরপর সেখানে আড়াই আউন্স পানি ও এক চিমটি লবণ মেশান । এগুলো তরলে রূপান্তরিত করতে ২০ মিনিটের মতো জ্বালাতে থাকুন। তরলের মতো হলে ভালো করে নাড়ুন ।

প্রতিদিন তিন কাপ করে এই চা পান করুন ।  প্রাণঘাতী বিভিন্ন রোগ থেকে রক্ষা পাবেন।