মুখ সারাদিন তেলতেলে হয়ে থাকা নারী-পুরুষ অনেকের জন্যই একটি মারাত্মক বিব্রতকর সমস্যা । তেল তেলে ত্বকের সমস্যা এবং সমাধান খুজি না এমন মানুষ অথচ তিনি সৌন্দর্য্য সচেতন তা হতেই পারে না ।  তৈলাক্ত ত্বক দেখতে তো খারাপ লাগেই, আপনাকে দেখায় অনেক কালো, রোদে পোড়া দাগ বেশী বোঝা যায় এবং প্রচুর ব্রন ওঠে । সব মিলিয়ে সকলের সামনে সৌন্দর্যের অবস্থা শোচনীয়। হয়ত এই সমস্যা দূর করবার জন্য ইতোমধ্যে অনেকে অনেক ধরনের ফেস ওয়াশ থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের ক্রিম তথা প্রস্বাধনী ব্যবহার করেছেন । কিন্তু তথাপিও আপনার ত্বকের এই সমস্যা দূর হচ্ছে না,বা হলেও অল্প কিছু সময় পরই আবার ফিরে আসছে  সেই একই সমস্যা । তাই আজ আমরা আলোচনা করব ত্বকের এই সমস্যাটি নিয়ে এবং সমাধান দেওয়ার চেষ্টা করব প্রাকৃতিক গুণ সমৃদ্ধ বিভিন্ন উপকরণ দিয়ে । তাহলে চলুন শুরু করা যাক-

 

তেল তেলে ত্বকের সমস্যা এবং সমাধান করতে যা লাগবে-

কুসুম গড়ম পানি ,লবণ,লেবুর রস এবং সাধারন ফেসওয়াশ ইত্যাদি ।

 

এখন যেভাবে ব্যবহার করবেন-

দিনের শুরুতেই মুখ ভালো করে পরিষ্কার করে নিন সাধারণ পানি দিয়ে,চাইলে সাধারণ ফেসওয়াশও ব্যবহার করতে পারেন ।

মুখে উষ্ণ পানির ঝাপটা দিয়ে পরিষ্কার করে নিন। খেয়াল রাখবেন মুখে যেন ফেসওয়াশ লেগে না থাকে। এবার এক মগ হালকা

উষ্ণ পানির সাথে এক চামচ লবণ ও লেবুর রস মিশিয়ে নিন । এই পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন ভালো করে পানির ঝাপটা দিয়ে।

অবশ্যই চোখ বন্ধ রাখবেন, নাহলে চোখ জ্বলতে পারে। লবণ পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে,মুখ ভালো করে মুছে নিন। যদি চিটচিটে ভাব

বেশী মনে হয়, বা অস্বস্তি লাগে, তাহলে মিনিট দশেক পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে মুছে নিন।

 

কিছু সতর্কতা-

মনে রাখবেন , তৈলাক্ত ত্বকের জন্য সাধারণ পানির বদলে ফিল্টার করা পানি বা ফুটানো পানি ব্যবহার করাই ভালো । তৈলাক্ত

ত্বকে স্ক্রাবার ব্যবহার করবেন না। ধোয়ার সময় চোখ বন্ধ করে নিবেন,যা আগেও উল্লেখ করা হয়েছে । না হলে আবার চোখের

সমস্যায় পড়ে যেতে পারেন ।

 

কিছু টিপস –

তৈলাক্ত ত্বকে খুব বেশী প্রসাধনী ব্যবহার না করাই ভালো, এতে ব্রণের সমস্যা বাড়ে । ওয়েট টিস্যু ব্যবহার করবেন না তৈলাক্ত

ত্বকে, এতে ত্বকের ক্ষতি হয় ।  দিনের যে কোন সময় ত্বক তৈলাক্ত মনে হলে টিস্যু বা রুমাল পানিতে ভিজিয়ে সেটা দিয়ে মুখে

মুছে নিন। সুযোগ পেলে বরং ঘষে নিন। ত্বকের বাড়তি তেল নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

 

উপরে সকলের কমন একটি সমস্যা ত্বকের তেল তেলে ভাব,তা নিয়ে উপরে কিছু আলোচনা,টিপ্স দেওয়া হল । চাইলে ট্রাই করে

দেখতে পারেন । আশা করি এতে অনেকেরই উপকার হবে । সাথে থকার জন্য ধন্যবাদ ।