ঝলমলে ত্বকের জন্য ৫টি ঘরোয়া টিপস

 

চকচকে ত্বক সমস্ত মহিলারা চান ।  আমরা সকলেই চেষ্টা করি আমাদের ত্বক যেন হয় ঝলমলে এবং ত্রুটিহীন । তাই আজকাল বাজারে বিভিন্ন নাইট ক্রিম, কোল্ড ক্রিম, অ্যান্টি-এজিং ক্রিমগুলির ব্যাপক চাহিদা রয়েছে । এই পণ্যগুলির বেশিরভাগ গুলিরই মধ্যে রাসায়নিক থাকে এবং আপনার ত্বকের জন্য যা খুবই ক্ষতিকর । তারুণ্য ধরে রাখতে এবং চকচকে ত্বক পেতে আপনাকে অবশ্যই বাজারে সহজলভ্য প্রতিটি পণ্য অন্ধভাবে নয়, যাচাই করে কিনতে হবে । ক্ষতিকারক রাসায়নিকযুক্ত সমস্ত পণ্যই ব্রেকআউট,জ্বালা, ব্রণ ইত্যাদির কারণ হতে পারে । তাই আপনাকে এই বিষয়ে সর্বোচ্চ সতর্ক হতে হবে । [ ঝলমলে ত্বকের জন্য ৫টি ঘরোয়া টিপস ]

 

অনেক মহিলা প্রতিদিন তাদের মেইক আপ তৈরি করতে প্রচুর প্রসাধনী পণ্য ব্যবহার করে থাকেন । যার অধিকাংশই বাজার থেকে ক্রয় করা । আপনি জেনে অবাক হবেন যে, আপনার নিজের সৌন্দর্য পণ্য কেন? বাজারে পাওয়া বেশিরভাগ সৌন্দর্য পণ্যগুলিই অনাকাঙ্ক্ষিত কৃত্রিম উপাদান এবং রাসায়নিক উপাদানে পূর্ণ। আপনি আপনার ত্বকে যা প্রয়োগ করেন (সৌন্দর্য পণ্য) তার প্রায় ৬০% আপনার ত্বক শোষণ করে নেয় । আপনি এখন নিশ্চয়ই চাইবেন না যে আপনার ত্বক ক্ষতিকারক উপাদানগুলি শোষণ করুক । তাই আপনাকে এটা নিশ্চিত করতে হবে, আপনার ত্বক যে সৌন্দর্য পণ্য শোষণ করছে সেগুলি নিরাপদ ।

 

তবে এ ক্ষেত্রে বড় যে সমস্যা তা হচ্ছে আমরা অনেকে জানিই না কিভাবে একটি বিউটি প্রোডাক্ট কে যাচাই করতে হবে বা আমাদের যাচাই কতখানি সঠিক হবে । আর ঠিক এ কারণেই শতাব্দী ধরে মানুষ স্বাস্থ্যজ্জ্বোল ত্বক পেতে প্রাকৃতিক প্রতিকারের দিকে ঝুঁকছে ।  যেহেতু এটা পরিষ্কার যে আপনার বিউটি প্রোডাক্ট যত ভাল ব্র্যান্ডেরই হোক না কেন সেখানে সন্দেহের একটা অবকাশ থেকেই যাচ্ছে । তাই আপনার জন্য সবচেয়ে ভাল পরামর্শ হচ্ছে, আপনি নিজেই বাড়িতে প্রাকৃতিক উপাদানের সমন্বয়ে কিছু ক্রিম বা ঐ জাতীয় পণ্য তৈরী করে নিন ।

 

আমরা এখানে আজ আপনাদের সুবিধার জন্য ঝলমলে ত্বকের জন্য ৫টি ঘরোয়া টিপস দেওয়ার চেষ্টা করব । এখানে আপনি যেসব উপাদান এবং উপাদানের সমন্বয়ে তৈরী সিরাপ বা ক্রিম পাবেন তা সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে তৈরী হবে । যেগুলো যুগ যুগ ধরে মানুষ ব্যবহার করে আসছে এবং ভাল ফলাফল পেয়ে আসছে । তাই আপনাদের অনুরোধ করব পুরো লেখাটি মনোযোগ দিয়ে পড়বেন এবং বাড়িতে ট্রাই করবেন । তাহলে চলুন শুরু করা যাক-

.

ঝলমলে ত্বকের ৫টি টিপস || চকচকে ত্বকের কার্যকর ঘরোয়া প্রতিকার

.

১।  ডিটক্সিংয়ের জন্য পানির প্রয়োজনীয়তা

প্রচুর পরিমাণে পানি পান করা এবং পানিতে লেবু বা শসা যোগ করার সাথে ডিটক্স করা এবং এটি প্রতিদিন পান করা আপনার ত্বককে স্বাভাবিকভাবে সুস্থ রাখতে সহায়তা করবে! পানি খাওয়া অত্যন্ত প্রয়োজনীয় কারণ এটি আপনার শরীর থেকে বর্জ্য পদার্থ দূর করতে সহায়তা করে । এটি একটি দুর্দান্ত ডিটক্স যা আপনার দেহকে হাইড্রেটেড রাখে, ময়লা এবং তেল দূর করে এবং আপনার শরীর থেকে বর্জ্য অপসারণ করে । অতএব প্রথম পদক্ষেপটি হল, প্রচুর পরিমাণে পানি পান করা! এটি এখন পর্যন্ত চকচকে ত্বকের জন্য সবচেয়ে প্রয়োজনীয় ঘরোয়া প্রতিকার । এই পদক্ষেপের সাথে চকচকে ত্বকের ঘরোয়া প্রতিকারগুলি আরও সহজ হয়েছে! আপনাকে যা করতে হবে তা হল সবসময় আপনার কাছে পানীয় জলের বোতল রাখা !

২। পরিষ্কার ত্বক পেতে অ্যাপল সিডার ভিনেগার

আপনার ত্রুটিবিহীন ত্বক পেতে ক্রিমের জন্য আপনাকে প্রচুর পরিমাণে অর্থ ব্যয় করতে হবে না আপনি শুধু আপনার রান্নাঘরে একবার উঁকি দিন এবং অবাক হোন ! কেন এই কথাটি বলছি ? বাজার থেকে কেনা পণ্যগুলির চেয়ে এখানে অনেক প্রাকৃতিক উপাদান আপনি পাবেন যেগুলো আরো ভালভাবে কাজ করতে পারে, আপনার ত্বকের জন্য । এরকম একটি দুর্দান্ত পণ্য হল, অ্যাপল সিডার ভিনেগার যা আপনার ত্বকের যত্নে খুব ভাল সমাধান হিসাবে কাজ করে এবং আপনার ত্বকের  ছিদ্রগুলিকে সংক্রামিত হতে বাধা দেয় । এটি ত্বককে নরম এবং কোমল করে তোলে । আরো ভাল ফলাফলের জন্য এটি একটি তুলোর বলে লাগিয়ে নিয়ে আপনার পরিষ্কার অথবা স্যাঁতসেঁতে মুখে প্রতিদিন ব্যবহার করুন । অ্যাপল সিডার ভিনেগার দ্রবণটি প্রয়োগ করার আগে পাতিত জল মিশ্রিত করতে ভুলবেন না । অ্যাপল সিডার ভিনেগার চকচকে ত্বকের জন্য সেরা একটি ঘরোয়া প্রতিকারে হিসেবে বেশ খ্যাত  ।

 

৩। চকচকে ত্বকের জন্য মধু

মধু একটি দুর্দান্ত ক্লিনজার এবং একটি প্রাকৃতিক ময়শ্চারাইজার । আপনাকে যা করতে হবে তা হল খালি মধুর এক পাতলা স্তরটি আপনার মুখ এবং শরীরের যেসব অংশে আপনি চান সেসব জায়গায় লাগিয়ে নিন । এরপর ২০-৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন এবং এরপর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন । মধু আপনার ত্বককে পুষ্ট করবে এবং এটিকে প্রাকৃতিকভাবে চকচকে এবং মসৃণ করবে । এটি চকচকে ত্বকের সবচেয়ে স্বাস্থ্যকর ঘরোয়া প্রতিকার হিসাবে শ্রেণীবদ্ধ একটি উপাদান ।

 

৪। জলপাই তেল দিয়ে প্রাকৃতিকভাবে চকচকে এবং মসৃণ ত্বক পান

আপনি যদি নিয়মিত আপনার ত্বকে জলপাইয়ের তেল ব্যবহার করেন তাহলে এটা নিশ্চিত করেই বলা যায় আপনি সুন্দর ত্বকের অধিকারি হতে চলেছেন । জলপাই তেল ভিটামিন সমৃদ্ধ যা আপনার ত্বককে হাইড্রেটেড রাখতে এবং সমস্ত বর্জ্য থেকে পরিষ্কার থাকতে সহায়তা করে । এটি চকচকে ত্বকের অন্যতম সেরা ঘরোয়া প্রতিকার হিসেবে বিবেচ্য ।

 

৫। গোলাপজল দিয়ে পরিষ্কার ত্বক পান

ঝলমলে ত্বক পেতে একটি সেরা ঘরোয়া প্রতিকার হল প্রতিদিন কিছু ভার্জিন গোলাপজল দিয়ে আপনার ত্বককে পম্পার করা (মুছে নেওয়া )! আপনার ত্বকের পিএইচ ভারসাম্য বজায় রাখার জন্য গোলাপ জলের স্নিগ্ধতা দুর্দান্ত কাজ করে, রক্ত ​​সঞ্চালন বাড়াতে সহায়তা করে এবং আপনার ত্বকে এক ঝলকানি এবং প্রাকৃতিক চেহারা দেয় । এটি একটি প্রিয় প্রাকৃতিক টোটকা যা আপনার ত্বককে স্বাভাবিকভাবে পরিষ্কার রাখতে সহায়তা করে!

ঝলমলে ত্বকের জন্য এই পাঁচটি ঘরোয়া প্রতিকার সবচেয়ে ভাল হয় যখন প্রাকৃতিক অবস্থায় ব্যবহার করা হয়, যেমন প্রাকৃতিক বিভিন্ন উদ্ভিদ থেকে জেল স্টোর করে বা জমিয়ে ব্যবহারের চেয়ে সরাসরি উদ্ভিদ থেকে বের করা জেল ব্যবহার করা । অর্থাৎ টাটকা উপাদান গুলো ব্যবহার করা । একই কথা গোলাপ জল এবং জলপাই তেল এর জন্যও প্রোযোজ্য ।

এই ছিল চকচকে ত্বকের জন্য আমাদের পাঁচটি সেরা ঘরোয়া প্রতিকার । আশা করি এগুলো আপনাদের ত্বকের সমস্যা দূর করে সুন্দর এবং মসৃণ ত্বক পেতে সাহায্য কবে ।

 

সব শেষে দুটি কথা

আপনি হয়ত এ পর্যন্ত প্রচুর অর্থ খুইয়েছেন বিভিন্ন প্রস্বাধনি কম্পানির বাহারি সব বিজ্ঞাপন দেখে । কিন্তু ফল স্বরূপ পেয়েছেন বেশির ভাগই প্রতারণা । যা খুবই স্বাভাবিক । তাই বলব প্রথমে সচেতন হোন, যাচাই করুন তারপর ব্যবহার করুন । অন্ধ ভাবে কোনো কিছুকেই বিশ্বাস করবেন না । আর সব সময় চেষ্টা করবেন প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে রূপ চর্চা করতে । এতে ফল হয়ত রাতারাতি পাবেন না কিন্তু উল্টোটা হবার সম্ভাবনা খুবই কম ।

এছাড়াও আমাদের দৈনন্দিন সাংসারিক কাজে আমরা যেসব উপকরণ ব্যবহার করি । তার মাঝে এমন অনেক কিছুই আছে যেগুলো দিয়ে আমরা আমাদের ত্বকের পরিচর্যা করতে পারি । এর জন্য শুধু আমাদের পদ্ধতি গুলো জেনে নিতে হবে এবং সেই পণ্য গুলি কি কি তা জেনে নিতে হবে । আমরা আশা করি যে ঝলমলে ত্বকের জন্য এই টিপসগুলি আপনাকে অনেক সহায়তা করবে এবং আপনি সুন্দর ত্বকের অধিকারি হবেন ।

পরবর্তী পোস্টে একটি বিশেষ প্রাকৃতিক উপাদান নিয়ে লিখব, সেটি পেতে চাইলে নিয়মিত আমাদের সাইটটি ভিজিট করুন । ধন্যবাদ ।