দাঁতের ক্ষয় রোধ করার ঘরোয়া উপায়-এখনকার সময়ে দাঁতের  ক্ষয় ও দাঁতে ছিদ্র হয়ে যাওয়া একটি খুব সাধারণ সমস্যা বা রোগ

হয়ে দাঁড়িয়েছে।এই রোগে সাধারণত শিশু, টিনএজার ও বয়স্করা বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন।মূলত ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণের ফলেই

দাঁতে ক্ষয় ধরে থাকে। ঘন ঘন স্ন্যাক্স ও ড্রিঙ্কস খাওয়া, অনেকক্ষণ যাবত দাঁতের মধ্যে খাবার লেগে থাকা, ফ্লোরাইড এর

অপর্যাপ্ততা, মুখ ড্রাই থাকা, মুখের স্বাস্থ্যবিধি না মানা, পুষ্টির ঘাটতি থাকা ইত্যাদি কারণে দাঁতে ছিদ্র ও দাঁত ক্ষয় রোগ এর শিকার

হয়ে থাকে।

 

কিছু লক্ষণ:

  • দাঁতে প্রচন্ড ব্যাথা হয়।
  • কোন কিছু খাওয়া বা পান করার সময় শির শির করে ব্যাথা অনুভুত হওয়া।
  • আক্রান্ত দাঁতে গর্ত দেখা যায় এবং,
  • দাঁতের উপরে কালো বা বাদামী দাগ দেখা পড়া।

 

এই লক্ষণগুলি দেখা দেওয়ার পরও যদি প্রাথমিক পর্যায়ে চিকিৎসা করানো না হয় তাহলে ইনফেকশন এর মাত্রা বৃদ্ধি পেয়ে ব্যাথা ক্রমেই অসহনীয় হয়ে উঠতে পারে এবং দাঁতটি হারানোর সম্ভাবনা থাকে।দাতের এই ধরনের রোগের চিকিৎসায় দাঁতে ফিলিং করা হয় ও ক্যাপ পরানো হয় এবং দাঁতের অবস্থা খুব খারাপ হলে রুট ক্যানেল করা হয়। এই সব চিকিৎসা খুব ব্যায় বহুল এবং কষ্টদায়কও বটে।

তাই চলুন ঘরোয়া কিছু উপায়ে দাঁতের ব্যাথা কমানো যায় এমন কিছু উপায় জেনে নিই-

 

দাঁতের ক্ষয় রোধ করার ঘরোয়া উপায়

 

হলুদের গুঁড়ো

হলুদ নামক মসলাটি দাঁতের ছিদ্রের সমস্যায় ব্যাবহার খুবই উপকারি । হলুদে ব্যাকটেরিয়া ধ্বংসকারী উপাদান আছে যা দাঁতের ব্যাকটেরিয়ার ইনফেকশন কে ধ্বংস করতে পারে এবং এর প্রদাহ রোধী উপাদান দাঁতের ব্যাথা উপশম করতে পারে । নিয়ম হল, হলুদ গুঁড়া ও পানি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন এবং আস্তে আস্তে ব্যাথার দাঁতে লাগান,দেখবেন কিছু দিনের মাঝেই ব্যাথা কমে যাবে ।

পেঁয়াজ

আমাদের দৈনন্দিন গৃহস্থালির উপকরনের মধ্যে পেয়াজ অন্যতম।এই পেয়াজেরও রয়েছে অনেক ভেসজ গুণ।দাত ব্যথা হলে পেঁয়াজের একটি স্লাইস আক্রান্ত দাঁতের উপরে চেপে রাখুন দাঁতের ব্যাথা কমে যাবে । নিয়মিত পেঁয়াজ দেয়া খাবার খেলে দাঁত ক্ষয় সমস্যায় উপকার পাওয়া যায় ।

লবণ

প্রায় প্রতিটি টুথপেস্ট এর বিজ্ঞাপণেই দেখবেন লবণের কথা উল্লেখ করছে!কিন্তু কেন জানেন??লবনে আছে অ্যান্টিসেপ্টিক ও অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল উপাদান,যা মুখে ব্যাকটেরিয়া ধবংস করে প্রদাহ কমাতে ও ব্যাথাকে সহনীয় করতে সক্ষম ।ব্যবহারের নিয়ম হচ্ছে, ১ গ্লাস কুসুম গরম পানিতে ১ টেবিল চামুচ লবণ মিশিয়ে মুখে নিয়ে ১ মিনিট রাখুন এবং আক্রান্ত দাঁতের প্রতি মনোযোগ দিন। এভাবে দিনে ৩ বার করে করুন ব্যাথা কমে যাবে ।

 

এর বাহিরেও কিছু পদ্ধতি আছে যেমন, বেকিং সোডা, অ্যালোভেরা, লবঙ্গ, রসুন, পুদিনা, আপেল সিডার ভিনেগার ইত্যাদি

ব্যবহার করেও ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন ও দাঁতের ব্যাথা কমানো যায়। তবে অবশ্যই সকালে ও রাতে ঘুমানোর আগে নিয়মিত

দাঁত ব্রাশ করুন । আশা করি এতে আপনার দাত ভাল থাকবে এবং আপনিও থাকবেন চিন্তাহীন । ধন্যবাদ ।