ব্রকলি খাওয়ার যত উপকারিতা

যিনি জানেন না বা চিনেন না তাকে যদি কখনো ব্রকলি দেখানো হয় তিনি খুব সহজেই বলবেন, এটা সবুজ ফুলকপি । এটি দেখতে আসলেই ফুলকপির মত । তবে এর স্বাদ বা স্বাস্থ্য উপকারিতা ফুলকপির চেয়ে ঢের বেশি । প্রচুর পরিমাণে খনিজ ও এন্টিঅক্সিডেন্ট যুক্ত এই খাবারটি সারা বিশ্ব জুড়েই দারুণ সমাদৃত । এটি চায়নিজদের খাবার তালিকার অন্যতম একটি উপকরন। আপনি চাইলে এটি কাঁচা, ভাজি করে অথবা রান্না করেও খেতে পারেন । এটি আপনার স্বাস্থ্যের জন্য দারুণ উপকারি একটি সবজি । খুব বেশি দিন হয়নি এটি বাংলাদেশে এসেছে কিন্তু এর গুণের কারণে এটি এর মধ্যেই এদেশে দারুণ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে । তাই আজ আমরা ব্রকলি খাওয়ার যত উপকারিতা গুলো সম্পর্কে জানব-

 

প্রতি ১০০ গ্রাম ব্রকলির খাদ্যামান:

প্রথমেই এর মূল কিছু উপকারি খাদ্যামান গুলো জেনে নেওয়া যাক –

  • প্রোটিন থাকে ৩.৩ গ্রাম
  • ফ্যাট থাকে ০.১ গ্রাম
  • ক্যালসিয়াম থাকে ১৫০ মিলিগ্রাম
  • কার্বোহাইড্রেট বা শর্করা থাক ৫.৫ গ্রাম
  • আয়রন থাকে ১.৬ মিলিগ্রাম

পাশাপাশি রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন । যার মধ্যে ভিটামিন সি, বি-১ এবং বি-৩ রয়েছে । শুধু তাই নয় এক বাটি ব্রকলিতে এক বাটি ভাতের সমান প্রোটিন থাকে । কিন্তু ক্যালোরি থাকে তার অর্ধেক । তাই ভাত খাওয়ার ফলে ভুঁড়ি হলেও ব্রকলি খেলে তা হবে না । তাই নিশ্চিন্তে ব্রকলি আপনার খাদ্য তালিকায় রাখতে পারেন ।

 

ব্রকলি খাওয়ার যত উপকারিতা গুলো নিচে তুলে ধরা হল-

 

১। কোলেস্টরল কমাতে সাহায্য করে

কোলেস্টরলের মতো সমস্যা কিন্তু হৃদরোগের সম্ভাবনা কয়েকগুণ বাড়িয়ে দেয়, শুধু তাই নয় এটি আরো অনেক রোগের এসেট

হিসেবে কাজ করে । আপনি যদি নিয়মিত ব্রকলি খান তাহলে এই কোলেস্টরলের মাত্রা কমতে শুরু করবে । এছাড়াও অনেকের

মতে এতে করে ভালো কোলেস্টরলের মাত্রা বাড়িয়ে দিতে সক্ষম এই সবজিটি ।

 

২। হৃদযন্ত্রকে সতেজ রাখে

ব্রকলি হার্টের জন্য খুবই উপকারি একটি সবজি । একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ যদি নিজের দৈনন্দিন খাদ্যতালিকায় ব্রকলি রাখেন

তাহলে তা তার হৃদযন্ত্রকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে । কারণ ব্রকলিতে রয়েছে আইসোথিওসায়ানেটস এবং সালফোরাফেন’এর

মতো অ্যান্টিইনফ্লেমেটারি উপাদান, যা হৃদপিন্ডে রক্ত সঞ্চালনে সাহায্য করে থাকে, এবং আপনার হার্টকে সুস্থ্য রাখে ।

.

৩। ক্যালসিয়ামের ভরপুর উৎস

উপরেই বলা হয়েছে ব্রকলি হচ্ছে ক্যালসিয়ামে ভরপুর একটি সবজি । স্কুল বা কলেজ পড়ুয়া বা বিশেষ করে মহিলাদের ব্রকলি

খাওয়া খুবই দরকার । এর ফলে শরীরের হাড় এবং দাঁত মজবুত হয়ে থাকে । যার ফলে বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে হাড়ের জয়েন্ট

পেইনের মতো সমস্যা অনেকাংশেই কমে যায় ।

.

৪। শরীরে অ্যালার্জি এবং প্রদাহ রোধ করে

ব্রকলিতে রয়েছে অ্যান্টি ইনফ্লেমেটারি উপাদান । যা হার্টকে সুস্থ রাখার পাশাপাশি বিভিন্ন অ্যালার্জি থেকে সংক্রমণের প্রবণতা

রোধ করে । শুধু তাই নয়, শরীরে বিভিন্ন প্রদাহ থেকে ও বাঁচাতে সাহায্য করে ।

.

৫। ডায়াবেটিক রোগীরা অবশ্যই খাবেন

ব্রকলি ডায়াবেটিক পেশেন্টদের জন্য এক প্রাকৃতিক ওষুধ বলা চলে । ব্রকলি রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে

।তাই অকালে বহুমূত্র বা ডায়াবেটিক রোগে আক্রান্ত হতে না চাইলে খাদ্যতালিকায় যোগ করুন ব্রকলি ।

.

৬। কোষ্ঠকাঠিন্যকে চির বিদায়

ব্রকলিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার । যারা কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যায় ভুগেন, তাঁরা ওষুধ না খেয়ে নিয়মিত ব্রকলি খান ।

একমাসের মধ্যে কোষ্ঠকাঠিন্যের মত সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন ।

.

৭।  অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে ভরপুর ব্রকলি

ফুলকপি বা বাধাকপির তুলনায় ব্রকলিতে রয়েছে বেশি পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট । ভিটামিন সি ছাড়াও ক্যারোটেনয়েড,

লুটেইন, বিটা-ক্যারোটিন, ফ্ল্যাভনয়েড রয়েছে ব্রকলিতে, যা কিনা শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসাবেই চিহ্নিত করেন

চিকিৎসকরা । তাই ব্রকলি খেলে শরীরে রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা কয়েকগুণ বেড়ে যায় ।

 

কীভাবে খেলে উপকার পাবেন?

ব্রকলি অল্প জলে সেদ্ধ করে নিন, অতিরিক্ত জল ফেলে দেবেন না । এবার তাতে স্বাদের জন্য একটু নুন, গোলমরিচ, চিলি ফ্লেক্স,

ভিনিগার এবং একটু অলিভ অয়েল মিশিয়ে নিন । ব্যাস তোরী হয়ে গেল আপনার ব্রকলি । এবং এটাই ব্রকলির সবচেয়ে জনপ্রিয়

এবং স্বাস্থ্যকর রেসিপি ।

 

এছাড়া রোস্টেড ব্রকলি। মুচমুচে করে ব্রকলির স্বাদ পেতে ব্রকলি রোস্ট করে তাতে একটু চিজ ছড়িয়েও খেতে পারেন । পাস্তা

খুবই স্বাস্থ্যকর খাবার । অন্যান্য সবজির পাশাপাশি এতে ব্রকলি সেদ্ধ করে মিশিয়ে দিন । স্বাদের পাশাপাশি স্বাস্থ্যও বজায়

থাকবে।

.

ব্রকলি খাওয়ার কি কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া রয়েছে?

যেকোনও জিনিসের ভালো ও খারাপ দিক দুই রয়েছে, তেমনই ব্রকলি খাওয়ারও কিছু খারাপ দিকও আছে । যারা থাইরয়েডের

সমস্যায় ভুগছেন তাদের ব্রকলি খাওয়া একেবারেই ঠিক না । কারণ ব্লকলি খেলে তা থাইরয়েড গ্রন্থির ওপর প্রভাব ফেলে, যার

ফলে ওজন বেড়ে যেতে পারে ।

 

স্বাস্থ্যসচেতন বহু মানুষই স্যালাড হিসাবে কাঁচা ব্রকলি খেয়ে থাকেন । ব্রকলি সবজি হিসাবে খুবই ভাল এর কোনও তুলনা নেই ।

কিন্তু ব্রকলিতে রয়েছে এমন কিছু সুগার যা, সহজে হজম হয় না । হজমে বাধা সৃষ্টি হলেই তা থেকে গ্যাস ফর্ম করে যায় । তাই

যাদের হজমে সমস্যা রয়েছে তারা কাঁচা না খেয়ে রান্না করে খাওয়াই উত্তম ।

 

উপরে ব্রকলির কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতা সম্পর্কে আলোকপাত করা হল । আশা করি অনেকেই উপকৃত হবেন । ধন্যবাদ ।